newsletter

newsletter

Sign up and get a 5% OFF sitewide coupon, valid only on new Registration

Coco Peat - 4 kg Block (±5%)

৳250.00
Quantity

  • Security policy (edit with Customer reassurance module) Security policy (edit with Customer reassurance module)
  • Delivery policy (edit with Customer reassurance module) Delivery policy (edit with Customer reassurance module)
  • Return policy (edit with Customer reassurance module) Return policy (edit with Customer reassurance module)

পৃথিবীর উন্নত দেশ গুলোতে বাড়ির ছাদে বা বারান্দায় বাগান করার জন্য অনেকেই মিডিয়াম বা মাটির বিকল্প হিসাবে কোকো পিট ব্যবহার করে থাকেন। ছাদ বাগান কিংবা বাণিজ্যিক চাষের জন্য কোকো পিট মাটির উন্নত বিকল্প। শুকনো নারেকেলের আঁশ বা কয়ার এর গুঁড়া হলো কোকো পিটের মূল উপাদান। এই উপাদানগুলকে হাইড্রোলিক মেশিনে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে বিভিন্ন সাইজ ও ওজনের ব্লক বা পিট আকারে তৈরি করা হয়।

কোকো পিটের সুবিধা সমুহঃ

  • কোকো পিটে আছে পানি ধরে রাখার অসাধারন ক্ষমতা। গাছের জন্য যতটুকু পানি দরকার ঠিক ততটুকু পানি এই কোকো পিট ধারন করে রাখে ফলে গাছের শিকড় বা মুলে পঁচন ধরে না।
  • কোকো পিট দিয়ে গাছ লাগালে ক্ষতিকারক পোকা মাকড় আসে না।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস চলাচল করতে পারে ফলে গাছের শিকড় দ্রুত বাড়ে। গাছের শিকড় বাড়ার কারনে গাছও দ্রুত বাড়ে এবং সাস্থ্যবান হয়।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস আসা যাওয়ার কারনে ক্ষতিকারক ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারে না।
  • কোকো পিটে রাসায়নিক সার মিশানো ছাড়াও চাষ করা যায়। শুধু মাত্র ভার্মি কম্পোষ্ট অথবা জৈব সার মিশিয়ে চাষ করা যায় ফলে রাসায়নিক মুক্ত সবজি, ফল, ফুল, অর্কিড ও অন্যান্য গাছ উৎপাদন করতে পারবেন।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় পরিষ্কার ও পরিছন্ন ফলে যেখানে গাছ রাখবেন সেই যায়গা গুলো যেমন আপনার ঘর, বারান্দা ও ছাদ নোংরা হবে না সর্বসময় পরিষ্কার ও পরিছন্ন থাকবে।
  • কোকো পিটে বেড়ে উঠা গাছের ফল ও ফুল বড় ও পুষ্টিবান হয় এবং যার কারনে হাইড্রপোনিক্স বাগান মালিকেরা মাটি ব্যাবহার না করে কোকো পিট ব্যাবহার করে থাকেন।
  • কোকো পিট ১০০% জৈব উপাদান।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিকভাবে অপকারী ব্যাকটেরিয়া এবং ফাঙ্গাস প্রতিরোধী উপাদান বিদ্যমান থাকে।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিক মিনারেল থাকে যা উদ্ভিদের খাদ্য তৈরি এবং উপকারী অণুজীব সক্রিয় করার জন্য বিশেষ ভূমিকা রাখে।
  • কোকো পিট ph মান সঠিক পরিমানে ধরে রাখে।
  • কোক পিটে পানি নিষ্কাশন খুব সহজেই হয়।
  • কোকো পিটে গাছের মৃত্যুহার খুব কম।
  • বীজতলা ও বীজ জার্মিনেশন এর এক অসাধারন মাধ্যম এই কোকো পিট।
  • হাইড্রপোনিক্স চাষাবাদ এর জন্য অন্যতম মাধ্যম।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় ওজনে অনেক গুন হালকা তাই গাছের টব বা পাত্র সহজে বহন করা যায়। আর ছাদের উপর অতিরিক্ত চাপও পড়েনা।

দ্রস্টব্যঃ

কোকো পিটের ওজন নির্দিস্ট ভাবে বলা যায় না, একেকটা কোকো পিটের ওজন একেক রকমের হয়ে থাকে। ৪(± ৫%) কেজি কোকো পিট অর্ডার দিলে আপনার কাছে যে কোকো পিট যাবে সেটার ওজন হবে ৩ কেজি ৭০০/৮০০ গ্রাম থেকে ৪ কেজি ২০০ গ্রামের ভেতর ।

পৃথিবীর উন্নত দেশ গুলোতে বাড়ির ছাদে বা বারান্দায় বাগান করার জন্য অনেকেই মিডিয়াম বা মাটির বিকল্প হিসাবে কোকো পিট ব্যবহার করে থাকেন। ছাদ বাগান কিংবা বাণিজ্যিক চাষের জন্য কোকো পিট মাটির উন্নত বিকল্প। শুকনো নারেকেলের আঁশ বা কয়ার এর গুঁড়া হলো কোকো পিটের মূল উপাদান। এই উপাদানগুলকে হাইড্রোলিক মেশিনে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে বিভিন্ন সাইজ ও ওজনের ব্লক বা পিট আকারে তৈরি করা হয়।

কোকো পিটের সুবিধা সমুহঃ

  • কোকো পিটে আছে পানি ধরে রাখার অসাধারন ক্ষমতা। গাছের জন্য যতটুকু পানি দরকার ঠিক ততটুকু পানি এই কোকো পিট ধারন করে রাখে ফলে গাছের শিকড় বা মুলে পঁচন ধরে না।
  • কোকো পিট দিয়ে গাছ লাগালে ক্ষতিকারক পোকা মাকড় আসে না।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস চলাচল করতে পারে ফলে গাছের শিকড় দ্রুত বাড়ে। গাছের শিকড় বাড়ার কারনে গাছও দ্রুত বাড়ে এবং সাস্থ্যবান হয়।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস আসা যাওয়ার কারনে ক্ষতিকারক ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারে না।
  • কোকো পিটে রাসায়নিক সার মিশানো ছাড়াও চাষ করা যায়। শুধু মাত্র ভার্মি কম্পোষ্ট অথবা জৈব সার মিশিয়ে চাষ করা যায় ফলে রাসায়নিক মুক্ত সবজি, ফল, ফুল, অর্কিড ও অন্যান্য গাছ উৎপাদন করতে পারবেন।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় পরিষ্কার ও পরিছন্ন ফলে যেখানে গাছ রাখবেন সেই যায়গা গুলো যেমন আপনার ঘর, বারান্দা ও ছাদ নোংরা হবে না সর্বসময় পরিষ্কার ও পরিছন্ন থাকবে।
  • কোকো পিটে বেড়ে উঠা গাছের ফল ও ফুল বড় ও পুষ্টিবান হয় এবং যার কারনে হাইড্রপোনিক্স বাগান মালিকেরা মাটি ব্যাবহার না করে কোকো পিট ব্যাবহার করে থাকেন।
  • কোকো পিট ১০০% জৈব উপাদান।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিকভাবে অপকারী ব্যাকটেরিয়া এবং ফাঙ্গাস প্রতিরোধী উপাদান বিদ্যমান থাকে।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিক মিনারেল থাকে যা উদ্ভিদের খাদ্য তৈরি এবং উপকারী অণুজীব সক্রিয় করার জন্য বিশেষ ভূমিকা রাখে।
  • কোকো পিট ph মান সঠিক পরিমানে ধরে রাখে।
  • কোক পিটে পানি নিষ্কাশন খুব সহজেই হয়।
  • কোকো পিটে গাছের মৃত্যুহার খুব কম।
  • বীজতলা ও বীজ জার্মিনেশন এর এক অসাধারন মাধ্যম এই কোকো পিট।
  • হাইড্রপোনিক্স চাষাবাদ এর জন্য অন্যতম মাধ্যম।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় ওজনে অনেক গুন হালকা তাই গাছের টব বা পাত্র সহজে বহন করা যায়। আর ছাদের উপর অতিরিক্ত চাপও পড়েনা।

দ্রস্টব্যঃ

কোকো পিটের ওজন নির্দিস্ট ভাবে বলা যায় না, একেকটা কোকো পিটের ওজন একেক রকমের হয়ে থাকে। ৪-৫ কেজি কোকো পিট অর্ডার দিলে আপনার কাছে যে কোকো পিট যাবে সেটার ওজন হবে ৪-৫ কেজির ভেতর অর্থাৎ ৪ কেজির উপরে এবং ৫ কেজির নিচে।

পৃথিবীর উন্নত দেশ গুলোতে বাড়ির ছাদে বা বারান্দায় বাগান করার জন্য অনেকেই মিডিয়াম বা মাটির বিকল্প হিসাবে কোকো পিট ব্যবহার করে থাকেন। ছাদ বাগান কিংবা বাণিজ্যিক চাষের জন্য কোকো পিট মাটির উন্নত বিকল্প। শুকনো নারেকেলের আঁশ বা কয়ার এর গুঁড়া হলো কোকো পিটের মূল উপাদান। এই উপাদানগুলকে হাইড্রোলিক মেশিনে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে বিভিন্ন সাইজ ও ওজনের ব্লক বা পিট আকারে তৈরি করা হয়।

কোকো পিটের সুবিধা সমুহঃ

  • কোকো পিটে আছে পানি ধরে রাখার অসাধারন ক্ষমতা। গাছের জন্য যতটুকু পানি দরকার ঠিক ততটুকু পানি এই কোকো পিট ধারন করে রাখে ফলে গাছের শিকড় বা মুলে পঁচন ধরে না।
  • কোকো পিট দিয়ে গাছ লাগালে ক্ষতিকারক পোকা মাকড় আসে না।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস চলাচল করতে পারে ফলে গাছের শিকড় দ্রুত বাড়ে। গাছের শিকড় বাড়ার কারনে গাছও দ্রুত বাড়ে এবং সাস্থ্যবান হয়।
  • কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস আসা যাওয়ার কারনে ক্ষতিকারক ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারে না।
  • কোকো পিটে রাসায়নিক সার মিশানো ছাড়াও চাষ করা যায়। শুধু মাত্র ভার্মি কম্পোষ্ট অথবা জৈব সার মিশিয়ে চাষ করা যায় ফলে রাসায়নিক মুক্ত সবজি, ফল, ফুল, অর্কিড ও অন্যান্য গাছ উৎপাদন করতে পারবেন।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় পরিষ্কার ও পরিছন্ন ফলে যেখানে গাছ রাখবেন সেই যায়গা গুলো যেমন আপনার ঘর, বারান্দা ও ছাদ নোংরা হবে না সর্বসময় পরিষ্কার ও পরিছন্ন থাকবে।
  • কোকো পিটে বেড়ে উঠা গাছের ফল ও ফুল বড় ও পুষ্টিবান হয় এবং যার কারনে হাইড্রপোনিক্স বাগান মালিকেরা মাটি ব্যাবহার না করে কোকো পিট ব্যাবহার করে থাকেন।
  • কোকো পিট ১০০% জৈব উপাদান।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিকভাবে অপকারী ব্যাকটেরিয়া এবং ফাঙ্গাস প্রতিরোধী উপাদান বিদ্যমান থাকে।
  • কোকো পিটে প্রাকৃতিক মিনারেল থাকে যা উদ্ভিদের খাদ্য তৈরি এবং উপকারী অণুজীব সক্রিয় করার জন্য বিশেষ ভূমিকা রাখে।
  • কোকো পিট ph মান সঠিক পরিমানে ধরে রাখে।
  • কোক পিটে পানি নিষ্কাশন খুব সহজেই হয়।
  • কোকো পিটে গাছের মৃত্যুহার খুব কম।
  • বীজতলা ও বীজ জার্মিনেশন এর এক অসাধারন মাধ্যম এই কোকো পিট।
  • হাইড্রপোনিক্স চাষাবাদ এর জন্য অন্যতম মাধ্যম।
  • কোকো পিট মাটির তুলনায় ওজনে অনেক গুন হালকা তাই গাছের টব বা পাত্র সহজে বহন করা যায়। আর ছাদের উপর অতিরিক্ত চাপও পড়েনা।

দ্রস্টব্যঃ

কোকো পিটের ওজন নির্দিস্ট ভাবে বলা যায় না, একেকটা কোকো পিটের ওজন একেক রকমের হয়ে থাকে। ৪-৫ কেজি কোকো পিট অর্ডার দিলে আপনার কাছে যে কোকো পিট যাবে সেটার ওজন হবে ৪-৫ কেজির ভেতর অর্থাৎ ৪ কেজির উপরে এবং ৫ কেজির নিচে।

GSA-002

You might also like